শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিপাকে কিন্ডার গার্টেন শিক্ষকরা

0
0

এলাহীনুর, সদর প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ:   বিশ্বব্যাপী চলছে করোনার মহামারী। করোনার লকডাউনে শুরু থেকেই বন্ধ রয়েছে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কর্মহীন হয়ে পড়েছেন সব শ্রেণী পেশার মানুষ। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিপাকে কিন্ডার গার্টেন শিক্ষকরা

বিশেষ করে কিন্ডারগার্টেন ও বেসরকারী স্কুল কলেজগুলোতে এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। জানা যায়, বেসরকারী কিন্ডারগার্টেনগুলো চলে শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতনের মাধ্যমে। স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন তুলতে পারছেন না প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

যার ফলে শিক্ষক এবং কর্মচারীদের বেতন বন্ধ রয়েছে গত ছয় মাস। অভিযোগ রয়েছে, বিভিন্ন সময় নন এমপিওভুক্ত শিক্ষকসহ নানা পেশাজীবীর মানুষ সরকারি সহায়তা পেলেও কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকরা কোন ধরণের সহায়তা পাননি। ফলে সারা দেশের ন্যায় সুনামগন্জ সদর উপজেলার প্রায় অর্ধশত কিন্ডারগার্টেন স্কুলের প্রায় ৪ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী এখন কর্মহীন হয়ে পড়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে অতি কষ্টে দিনাতিপাত করছেন।

প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় প্রায় ৫০টি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে প্রায় ৭ হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া করে। কিন্ডারগার্টেনের লেখাপড়ার সুখ্যাতি থাকায় সচেতন অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের এ স্কুলগুলোতে লেখাপড়া করাতে বেশি আগ্রহী হন।

ব্যক্তি মালিকানায় বা সমিতি দ্বারা পরিচালিত এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা শিক্ষার্থীদের বেতন এবং প্রতিষ্ঠানে শ্রেণী পাঠদানের বাইরে প্রাইভেট বা কোচিং করার টাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে জীবন যাপন করেন। পৌর শহরের সুনামগন্জ আইডিয়াল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক বলেন, দীর্ঘদিন প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের বেতন আদায় হচ্ছে না।

তারপরেও ধার দেনা করে ভবন ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিল ঠিকই নিয়মিত পরিশোধ করতে হচ্ছে। তবে শিক্ষক কর্মচারিদের বেতন দিতে পারছিনা। যদিও এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা নিয়ে বেশির ভাগ শিক্ষার্থী সরকারি বেসরকারি চাকরিসহ বিভিন্ন পেশায় সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিত।

সরকারের কাছে একটি সুষ্ট সমাধান ও সহযোগীতা চান ভোক্তভোগীরা।