রংপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হবে-শিক্ষামন্ত্রী

0
9

জাকির ইসলাম মিন রংপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

শনিবার সকালে (২০ নভেম্বর) রংপুর সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। আমাদের বেসরকারি কলেজে অনার্স-মাস্টার্সের শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করার বিষয়ে কথা বার্তা হচ্ছে। তবে নতুন করে শিক্ষক নেয়া হবে না। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এখনও উপস্থিতির সন্তোষজনক নয়। উপস্থিতির হার বৃদ্ধিতে সরকার তৎপর রয়েছেন বলে জানান তিনি। সার্কিট হাউসে নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় শেষে দুপুরে রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ অডিটোরিয়ামে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রংপুর বিভাগীয় অঞ্চলের শিক্ষকদের নিয়ে ‌‘শিক্ষা ব্যবস্থাপনা ও শিক্ষার মানোন্নয়ন’ বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ গ্রহণ করে বলেন,২০০১ সালে রংপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাস করা হয়। সেই আইন মোতাবেক তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রংপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ক্ষমতার পালাবদলের পর সেই বিশ্ববিদ্যালয়টি রংপুর থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়। আওয়ামী লীগ টানা তিনবারের মতো সরকারে রয়েছে।এ অবস্থায় রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি রংপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সাংবাদিকদের বলেন, রংপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হবে। তবে এখন সেটি কি অবস্থায় আছে জানি না। ঢাকায় গিয়ে বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখব। তিনি আরও বলেন, বেসরকারি অনার্স-মাস্টার্স কলেজগুলো এমপিওর ব্যাপারে কথা হচ্ছে। এনটিআরসির মাধ্যমে আগে কিছু নিয়োগ হয়েছিল সেগুলো নিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত প্রয়োজন। আরও কিছু এমপিওভুক্ত করেছি। যারা বাকি রয়েছে তাদের বিষয়েও সিদ্ধান্ত হবে। কিন্তু নতুন করে নেওয়ার ব্যাপারে একেবারেই নিষেধ রয়েছে।দেশে শিক্ষিত বেকার কমাতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কারিকুলাম পরিবর্তনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কর্ম উপযোগী শিক্ষা প্রদানের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে শিক্ষার মান উন্নয়ন করা, ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড ও চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য কীভাবে শিক্ষার্থীদের প্রস্তুত করা যায়, এ নিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে। আমরা চাই একজন শিক্ষার্থী অনেক বেশি উপযোগী হয়ে কর্মজীবনে প্রবেশ করুক। এ লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। পরে বিকেলের দিকে কারমাইকেল কলেজ পরিদর্শন করেন শিক্ষামন্ত্রী।