হালিশহর ড্যাম্পিং স্টেশন থেকে মাসে জৈব সার উৎপাদন হবে ৩৬০ টন।

0
1

দেবাশিষ গোলদার,চট্রগ্রাম:চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের হালিশহর ড্যাম্পিং স্টেশনে জৈব সার উৎপাদন প্রকল্পের বর্তমান অচলাবস্থা কাটিয়ে এর সক্ষমতা ও উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য পরিচালনা প্রস্তাবনা দিয়েছে ‘কৃষক বাজার’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান।

হালিশহর ড্যাম্পিং স্টেশন থেকে মাসে জৈব সার উৎপাদন হবে ৩৬০ টন।
হালিশহর ড্যাম্পিং স্টেশন থেকে মাসে জৈব সার উৎপাদন হবে ৩৬০ টন।

প্রস্তাবনায় উল্লেখ করা হয়েছে, সব ধরনের ব্যবস্থাপনাগত ব্যয় উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান নির্বাহ করবে এবং তারা মাসিক সার উৎপাদন ৩৬০ টনে উন্নীত করবে। এর প্রত্যুত্তরে মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, এখানে একটি পাওয়ার প্লান্ট স্থাপনের কর্মপরিকল্পনা রয়েছে। এর সাথে যাতে কোনো ধরনের সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির উদ্ভব না হয় সেদিকে খেয়াল রেখে প্রণীত নীতিমালা সাপেক্ষে জৈব সার উৎপাদন প্রকল্পটি সম্প্রসারিত করা যাবে।

তিনি বলেন, সাবেক মেয়র এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর আমলে নেয়া আয়বর্ধক প্রকল্পগুলো পুনরায় চালু করার উদ্যোগ নেয়া হবে। কৃষক বাজারের পক্ষে প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেন মো. কামাল উদ্দীন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল মান্নান সিদ্দিকী, সহকারী এস্টেট অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন।