পটুয়াখালীর সাবেক সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

0
1

মোঃ রিয়াজুর রহমান : ((পটুয়াখালী প্রতিনিধি)) পটুয়াখালীর সাবেক সিভিল সার্জন ডা. শাহ মোজাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে সরকারি অর্থ উত্তোলনের পর আত্মসাতের অভিযোগে দুদকের মামলায় সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক রোখসানা পারভীন, এই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির এ আদেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার তৎকালীন টিএইচও ডা. মো. শহীদুল আলম এমএস কোর্সের জন্য ছুটিতে ছিলেন। এজন্য সাবেক সিভিল সার্জন ডা. শাহ মোজাহিদুল ইসলাম দুমকি উপজেলার অতিরিক্ত আয়ন-ব্যয়ন কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ সময় তিনি ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য কমিউনিটি বেইজড হেলথ কেয়ারের জন্য বরাদ্দ ৩০ লাখ টাকার ২৬ লাখ ৬৭ হাজার ৮৯৮ টাকা তুলে আত্মসাৎ করেন বলে প্রাথমিক অনুসন্ধানে সত্যতা পাওয়া যায়। ১৩ নভেম্বর ২০১৮ দণ্ডবিধির ৪০৯, ৪২০, ৪৬৭, ৪৬৮ দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ধারায় পটুয়াখালী সদর থানায় এজাহার দায়ের করেন পটুয়াখালী জেলা দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মানিক লাল দাস।

পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোজাম্মেল হোসেন তদন্ত শেষ করেন। তিনি তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ সালে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ২৫ লাখ ৯১ হাজার ৯৪৪ টাকা ভুয়া বিল ও ভাউচারের মাধ্যমে উত্তোলন করে আত্মসাতের অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

অভিযোগপত্র সূত্রে জানা যায়, পটুয়াখালী সাবেক সিভিল সার্জন ডাক্তার শাহ মো. জাহিদুল ইসলাম বর্তমানে উপ-পরিচালক হিসেবে এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল দিনাজপুরে কর্মরত আছেন।