Gmail-এর যে ৬টি ফিচার আপনার অজানা

0
15
অনলাইন ডেস্কঃ ই-মেল পরিষবার ক্ষেত্রে গুগলের Gmail-এর গ্রাহক সংখ্যা রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। কিন্তু অনেকেই এই পরিষেবা সম্পর্কে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানেন না। তাঁদের জন্য বিস্তারিত জানানো হল Gmail-এর কিছু ফিচার।
Gmailশেষ পর্যায়ে হঠাত্‍ ইমেল এডিট করতে হলে undo send

ইমেল লেখার পর send বোতামে ক্লিক করার পরে কোনও ভুল চোখে পড়লে কিংবা এডিটিংয়ের কিছু গোলমাল নজরে এলে ইমেল সেন্ড করার পরেও তা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে চাইলে undo করতে পারেন। এমন পরিস্থিতিতে Gmail-এর জেনারেল সেটিংসে গিয়ে undo send অপশনটি চালু করতে পারেন।

সময় বাঁচাতে চালু করুন canned responses
একই মেল একাধিক ব্যক্তিকে পাঠাতে হলে বার বার ই-মেল লেখার প্রয়োজন নেই। অনেক সময় দেখা যায়, অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমরা একই ধরনের ইমেল বারবার লিখছি। সময় বাঁচাতে হলে মেলটি save করে canned responses হিসেবে জমিয়ে রাখা যায়। এরপর স্বল্প এডিট করে তা একাধিক বার ব্যবহার করা যায়। canned responses ফিচারটি পাওয়া যাবে gmail>settings>labs>canned responses গন্তব্যে।

অফলাইনেও Gmail ব্যবহার করা যায়
অনলাইনের নানান উপদ্রব থেকে বাঁচতে হলে অফলাইন মোডে কাজ করা দরকার হয়। এই অবস্থায় ই-মেল পাঠাতে হলে Gmail-এর অফলাইন অ্যাপটি ব্যবহার করুন। এই অ্যাপ-এর সাহায্যে অফলাইন থেকেও Gmail-এর বেশ কিছু ফিচার ব্যবহার করা যায়। এমনকি পুরনো ই-মেলও দেখা যায়। পাশাপাশি, নতুন ই-মেল বা কোনও মেলের জবাব লিখে পরে অনলাইনে গেলে তা নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে যায়।

ইনবক্স নোটিফিকেশন বন্ধ রাখতে হলে:
Gmail-এ নতুন কোনও ই-মেল এলে তার সংখ্যা menu bar-এর inbox লেখা শব্দের পাশে দেখা যায়। এতে অনেকের মনঃসংযোগে ব্যাঘাত ঘটে। এই ব্যবস্থা এড়াতে চাইলে email pause অপশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

অপছন্দের ই-মেল বন্ধ করতে হলে:
প্রায়ই দেখা য়ায়, অপ্রয়োজনীয় ই-মেলে ইনবক্স গিজগিজ করছে। এমন পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে হলে ভিজিট করুন unroll.me ওয়েবসাইটটি। এখানে sign up-এর পরে অনাকাঙ্খিত ই-মেল প্রাপ্তি থেকে সহজেই রক্ষা পাবেন।

2-factor authentication চালু করুন
শুধু ই-মেল নয়, বহু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, ছবি, ভিডিও এমনকি ব্যাংক সংক্রান্ত তথ্য অনেকে Gmail বা গুগলের অন্যান্য পরিষেবায় জমা রাখেন। এই কারণে ই-মেলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা মজবুত রাখা প্রয়োজন। 2-factor authentication ফিচার চালু করলে শুধু পাসওয়ার্ডের সাহায্যে ই-মেল খোলা সম্ভব হয় না। পাসওয়ার্ড এবং মোবাইলে আসা কোড পর পর ব্যবহার করেই ইমেল চালু করতে হয়। ফলে হ্যাকারদের হামলা থেকে বাঁচা সম্ভব হয়।