সীতাকুণ্ডে ছোট ভাইয়ের রডের আঘাতে বড় ভাইয়ের মৃত্যু

0
0

সীতাকুণ্ডে পারিবারিক কলহের জের ধরে ছোট ভাইয়ের রডের আঘাতে বড় ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) সকালে উপজেলার বাড়বকুণ্ডে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত ব্যক্তির নাম মো. ইসহাক (৫০)। তার বাড়ি মধ্যম মাহমুদাবাদ দিঘীর নামা গ্রামের নতুন তেলিবাড়ি। তিনি ওই এলাকার মৃত আলন মিয়া সওগারের ৫ম ছেলে। বাড়বকুণ্ড বাজারের আমন্ত্রণ হোটেল এন্ড রেঁস্তোরা রয়েছে তার।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে বড় ভাই ইছহাক সওদাগরের (৫৬) সাথে ছোট ভাই মো. ইব্রাহীমের (৪৫) বেশ কিছু দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এনিয়ে প্রায় সময় তাদের মধ্যে ঝগড়া হতো। সোমবার সকালে ইছহাক সওদাগর নিজ রান্না ঘরের নতুন একটি খুঁটি লাগানোর কাজ করছিলেন। এসময় ছোট ভাই ইব্রাহীম ও তার ছেলে মো. নাইম এতে বাধা দেয়। কাজে বাধা দেয়া নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছোট ভাই ইব্রাহীম ও তার ছেলে নাইম (২৪) রড ও লাঠি দিয়ে ইছহাক সওগাদরও তার স্ত্রী কহিনুর বেগম (৪৭) কে এলোপাথারি পিটিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত করে আহত করে। এসময় স্থানীয়রা আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জেসমিন আক্তার বলেন, ইছহাকের মাথায় রডের আঘাতটি একেবারে ভেতর পর্যন্ত হিট করেছে। আর স্ত্রী কহিনুর বেগমের হাতের হাঁড় ভেঙ্গে যায়। তাদের দুইজনেরই আঘাত গুরুতর হওয়ায় আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চমেক হাসপাতালে পাঠিয়েছি।
চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন বলেন, মো. ইছহাককে দুপুর ২টার সময় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
বাড়বকুণ্ড ইউপি পরিষদের চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজি বলেন, মাত্র দুইদিনের মাথায় পরপর দুইটি হত্যার ঘটনায় আমার উদ্বিগ্ন। এসব ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।
সীতাকুণ্ড মডে থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বনিক বলেন, ঘটনাটি আমরা অবগত হয়েছি। অভিযোগের পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।