লালমনিরহাটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু

0
1

প্রদীপ কুমার রায়, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি:

বাংলাদেশের একমাত্র অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমআরএএইউ) লালমনিরহাটে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আজ ২৬ জুন দুপুরে লালমনিরহাট বিমানবাহিনী এলাকায় অস্থায়ী ক্যাম্পাসে একাডেমিক কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) এয়ার ভাইস মার্শাল মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম।

চলতি শিক্ষাবর্ষে প্রায় ৭ হাজার শিক্ষার্থীর মেধা যাচাইয়ের মাধ্যমে ১শত ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনায় ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি লালমনিরহাট বিমানঘাঁটি এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাদ।
অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি এয়ার ভাইস মার্শাল মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, স্থায়ী ক্যাম্পাসের জন্য ৬শত ২০ একর জমি অধিগ্রহণের কাজ চলমান রয়েছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়টি আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে পরিচালিত হবে।লালমনিরহাট একদিন অ্যাভিয়েশন সিটিতে পরিণত হবে। বিভিন্ন দেশ থেকে শিক্ষার্থীরা এখানে পড়তে আসবেন।

তিনি আরও বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কারনে এ জেলার অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি সাধিত হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়টি (বিএসএমআরএএইউ) দেশের প্রথম বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় যা দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশ্বমানের শিক্ষালাভের সুযোগ করে দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ে এভিয়েশন ম্যানেজমেন্টে এমবিএ, এভিয়েশন সেফটি অ্যান্ড অ্যাক্সিডেন্ট ইনভেস্টিগেশনে এমএসসি এবং আন্তর্জাতিক ও মহাকাশ আইনে এলএলএম বিষয়ে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু করা হয়েছে। আগামীতে এমএসসি ইন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (অ্যারোস্পেস), এমএসসি ইন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (এভিওনিক্স), এমএসসি ইন স্পেস সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ারিং, এমএসসি ইন স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং স্নাতকোত্তর কোর্স চালু করা হবে। ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয়টি দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের জন্য একটি কেন্দ্রেবিন্দুতে পরিণত হবে। শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতে ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং, হেলিকপ্টার, উড়োজাহাজ, ফ্লাইট রক্ষণাবেক্ষণ, ফ্লাইট অপারেশন নিরাপত্তা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা, মহাকাশের বিভিন্ন ক্ষেত্র এবং সংশ্লিষ্ট গবেষণার উপর অধ্যয়নের সুযোগ পাবেন।

উল্লেখ্য উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারো স্পেস বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য সংসদে বিল উত্থাপন করলে, তা সংসদ সদস্যদের কণ্ঠ ভোটে পাস হয়। এরপরই ভিসি হিসেবে নিয়োগ পান এয়ার ভাইস মার্শাল এএইচএম ফজলুল হক। রাজধানী ঢাকার পুরাতন বিমানবন্দরের অস্থায়ী ক্যাম্পাসে ২০২০-২০২১ শিক্ষা বর্ষে প্রথম শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়েছে।