“সত্যতা যাচাই করতে কবর থেকে মৃতদেহ”

0
5

বিপুল জামান লিখন(নেত্রকোণা প্রতিনিধি):আদালতের নির্দেশে তদন্তের দাবিতে নেত্রকোণায় কবর থেকে দুলন আক্তার (২৩) নামে এক নারীর মৃতদেহ উত্তোলন করেছে পুলিশ।আজ মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে সদর উপজেলার কাইলাটী ইউনিয়নের দরোনবালী গ্রাম থেকে মরদেহ উত্তোলন করা হয়।

"সত্যতা যাচাই করতে কবর থেকে মৃতদেহ"
“সত্যতা যাচাই করতে কবর থেকে মৃতদেহ”

মামলার এজাহারে জানা যায়,সদর উপজেলার কাইলাটী ইউনিয়নে দরোনবালী গ্রামের আলতু মিয়ার(মৃত) ছেলে মোঃ আব্দুল কাইয়ূমের ছেলের সাথে ২০১৪ সালে বারহাট্রর নোয়াগাও গ্রামের মোঃ আজিজুল ইসলামের মেয়ে দুলন আক্তারের বিয়ে হয়।বিয়ের পর থেকে যৌতুক দাবী করে আসছিল কাইয়ূম।

 

দুলন যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মারধর করে বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেয়।এই পরিস্থিতিতে ছেলে সন্তানের জন্ম দিলে ৬ দিনের মাথায় বাচ্চা মারা যায়।কিন্তু যৌতুকের টাকা না দিতে পারায় নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়।লোভী কাইয়ুম চলতি বছর (১৭ই জানুয়ারী) রাতে খুন করে।

 

ঘটনার খবর পেয়ে দুলনের স্বজনরা ছোটো আসে এবং জামাইর বাড়িতে দাফন সম্পূর্ণ করে।এ জন্য নিহতের স্বজনরা কোনো মামলা করেন নি।কিছু দিন পর কাইয়ুম কলমাকান্দা উপজেলার রোমা নামের নারীকে বিয়ে করে সংসার করছে।

 

এই দিকে নিহতের মা বাদী হয়ে,গত (১২ ই এপ্রিল) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে আব্দুল কাইয়ূম,দ্বিতীয় স্ত্রী রোমা আক্তার ও মাতা বেগত আক্তারের বিরোদ্ধে সদর উপজেলায় মামলা করেন।

 

সদর উপজেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মোরশেদা খানম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,নিহতের ঘটনাটি সন্দেহ হওয়ায় আদালতের নির্দেশে ময়লা তদন্তের জন্য মঙ্গলবার দুলন আক্তারের মরদেহ কবর থেকে তোলা হয়।