অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর মামলায় সহযোগী ঝরিনা আদালতে

0
4

বিপুল জামান লিখন(নেত্রকোণা প্রতিনিধি): ধর্ষণ একটি সামাজিক ব্যাধি।ধর্ষণ করা আর সহযোগীতা করা উভয়ই সমান অপরাধী।এমনি সহযোগিতা করতে গিয়ে নেত্রকোণার মদন উপজেলার কিশোরীকে ধর্ষণের সহায়তায় ঝরিনা আক্তারকে গ্রেফতার করে রোববার(২৫ এপ্রিল) আদালতে পাটানো হয়েছে।

অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর মামলায় সহযোগী ঝরিনা আদালতে
অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর মামলায় সহযোগী ঝরিনা আদালতে

শনিবার(২৪ এপ্রিল) পাশ্ববর্তী জেলা কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার জাওয়ার মেয়ের শশুর বাড়ি থেকে গোপন তত্ত্বের ভিত্তিতে আটক করা হয়।

মদন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের দেওয়ানপাড়া গ্রামের আজিজুলের স্ত্রী ঝরিনা আক্তার।আজিজুল ও স্ত্রী ঝরিনা আক্তার উভয়েই মামলার আসামি।

মামলার এজাহারে জানা যায়, অনেক দিন আগ থেকে কিশোরীকে(নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক) জোড় করে ধর্ষণ করে আসছে ধর্ষক আজিজুল এবং তার সাথে সহযোগিতা করে স্ত্রী ঝরিনা আক্তার।তাই, ২৩ এপ্রিল সকালে কিশোরীর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,২ সন্তানের জনক আছেন আলীর ছেলে আজিজুল জোরপূর্বক ধর্ষণ করায় মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।জানাজানিতে মুরব্বিরা ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করে কিন্তু পুলিশের সহায়তায় মামলার পূর্ণতা পায়।

নেত্রকোণার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(অপরাধ) মনিরুল ইসলাম বলনে,মামলার পরবর্তীতে অপরাধী আজিজুলকে ধরার চেষ্টা চলছে।