চট্রগ্রামে ধোপাছড়ি বাজারে আগুনে পুড়েছে ১২ দোকান

0
10

দেবাশিষ গোলদার, চট্রগ্রাম:

চন্দনাইশের দূর্গম পাহাড়ি জনপথ ধোপাছড়ি ইউনিয়নের ধোপাছড়ি বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ১২টি দোকান পুড়ে প্রায় ৭০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানা যায়। আজ সোমবার সকাল ৭টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ধোপাছড়ি ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সভাপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান ও ধোপাছড়ি বাজারের ইজারাদার জাহাঙ্গীর আলম বাবুল জানান, পবিত্র রমজান মাস হওয়ায় সকাল ৭টায় পুরো বাজার ছিল মানুষ শূন্য। এসময় পুড়ে যাওয়া যে কোন একটি দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে বাজারের উত্তর পাশের কমপক্ষে ১২টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনে পুড়ে যাওয়া দোকানের মালিকরা হলো মো. রেজাউলের মুদি দোকানের গোডাউন, জসিম উদ্দিনের কসমেটিক, নাজিম উদ্দিনের মুরগি, মো. হারুনের টেইলার্স, মোস্তাফিজুর রহমানের ধানের গোডাউন, রফিকের মুরগি, বাদশা মিয়ার পান, আবু খানের কুলিং কর্ণার, মো. রশিদের বস্তা ও পলিথিন, মো. করিম সওদাগরের সার ও গ্যাস, আহমদ হোসেনের সার ও গ্যাস।এসময় তাড়াহুড়ো করে মাল বের করতে গিয়ে আবদুল হালিমের ডেকোরেশনসহ বেশ কয়েকটি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনায় পাশাপাশি আরো বেশ কয়েকটি দোকান অগ্নিকাণ্ড থেকে রক্ষা পায়।ধোপাছড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই বেলাল উদ্দিন জানান, ধারণা করা হচ্ছে সকাল ৭টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এসময় বাজারে মানুষজন কম থাকায় আগুন পাশাপাশি বেশ কয়েকটি দোকান গ্রাস করে নেয়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে এসে লাইন ধরা দোকানের মাঝখান থেকে ২টি দোকান খুলে ফেললে আরো বেশ কয়েকটি দোকান অগ্নিকাণ্ড থেকে রক্ষা পায়। খবর পেয়ে চন্দনাইশ দমকল বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলেও এর আগে স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আসলে ধোপাছড়ি ইউনিয়নটি দূর্গম এলাকা হওয়ায় সঠিক সময়ে দমকল বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত হতে পারেননি। পুড়ে যাওয়া প্রায় দোকানে ঈদের মাল মজুদ রাখায় অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ৭০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।