তাহিরপুরে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বখাটেদের হামলা, আটক-২

0
3

কাজল চন্দ্র কর, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের টাকাটুকিয়া গ্রামে ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের কারণে সামাজিক শাস্তির জের ধরে এক সনাতন ধর্মাবলম্বীর বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করে টুকেরগাঁও গ্রামের একদল বখাটে। এ ঘটনায় দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) ভোরে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে বুধবার (১৪ এপ্রিল) দুপুর দেড়টায় দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের টাকাটুকিয়া গ্রামের দেবেন্দ্র বর্মণের বাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় বৃদ্ধ ও নারীসহ প্রায় ৮ জন আহত হয়েছেন। তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ তরফদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, টুকেরগাঁও গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে সিরাজ মিয়া (৪৫) ও শহীদ মিয়া (৫০)। এ ঘটনায় একইদিন রাতে টুকেরগাঁও গ্রামের বিল্লাল মিয়াসহ ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ১০ থেকে ১২ জনের নামে তাহিরপুর থানায় মামলা করেছেন আহত দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে শ্যামল বর্মন। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) ভোরে এজাহারভুক্ত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। টাকাটুকিয়া গ্রামের বর্মণ পাড়ার স্কুলপড়ুয়া ছাত্রীদের দীর্ঘদিন ধরে উত্ত্যক্ত করতেন পাশ্ববর্তী টুকেরগাঁও গ্রামের কাশেম মিয়া, মুসা মিয়া, লাইট মিয়া ও পাবেল মিয়া। এনিয়ে ৪ মাস আগে টাকাটুকিয়া গ্রামে জামালগড়, রসুলপুর ও টুকেরগাঁও গ্রামের গণ্যমান্যদের উপস্থিতিতে সালিশ বসে। ভবিষ্যতে এমন কাজ করবেন না বলে সালিশে অঙ্গীকার করেন অভিযুক্তরা। এসময় তাদের কান ধরে উঠবস করানো হয়। ওই ঘটনার পরও নানাভাবে বর্মণ পাড়ার মেয়েদের বিরক্ত করতেন তারা। পরে বুধবার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে আগের বিচারে অপমানের জেরে দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে সঞ্চিত বর্মনকে রাস্তায় একা পেয়ে মারধর করেন টুকেরগাঁও গ্রামের অভিযুক্তরা। তার চিৎকার শুনে স্থানীয়রা রক্ষা করতে গেলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। তারপর টুকেরগাঁও গ্রামের ২০ থেকে ২৫ জন টাকাটুকিয়া গ্রামের দেবেন্দ্র বর্মণের বাড়িতে হামলা চালান। এ সময় তারা নারীদেরও মারপিট করেন। এ বিষয়ে তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, টাকাটুকিয়া গ্রামের বর্মণ পাড়ায় হামলা ও মারধরের ঘটনায় থানায় ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পুলিশ বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) ভোরে দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।