ছেলের অনুপস্থিতির সুযোগে পূএবধুকে ধষর্ণ

0
2

শেরপুরের নকলায় পুত্রবধূকে (২২) ধর্ষণের অভিযোগে হাসমত আলী ওরফে হাসু (৫০) নামে এক শ্বশুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ১৫ মার্চ সোমবার দুপুরে তাকে উপজেলার পাঠাকাটা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। হাসু উপজেলার পাঠাকাটা ইউনিয়নের কুড়েরপাড় এলাকার মৃত আব্দুল জুব্বারের পুত্র ও পেশায় দিনমজুর। পরে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হলে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরীফুল ইসলাম থান তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোর্ট ইন্সপেক্টর খন্দকার শহীদুল হক। এদিকে একইদিন বিকেলে জেলা সদর হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। অন্যদিকে ওই ঘটনায় এলাকায় ধিক্কারের ঝড় উঠেছে।

জানা যায়, প্রায় ৪ মাস আগে হাসমত আলীর বড় ছেলে পার্শ্ববর্তী ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি এলাকায় বিয়ে করে। নববধূর সাথে রয়েছে তার পূর্বের স্বামীর ২ বছরের একজন মেয়ে সন্তান। স্বামী দীর্ঘদিন থেকে ঢাকায় কাঁচামালের ব্যবসা করায় সে শ্বশুর-শ্বাশুড়িসহ ওই মেয়েকে নিয়ে বাড়িতে বসবাস করতো। স্বামী বাড়িতে না থাকায় এবং মেয়েকে নিয়ে শ্বাশুড়ি পার্শ্ববর্তী চকপাড়া এলাকায় বেড়াতে যাওয়ার সুযোগে গত ৬ মার্চ দুপুরে হাসমত তার পুত্রবধূকে ঘরের ভেতরে ডেকে নিয়ে দরজা বন্ধ করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে সে ওই ঘটনা জানাজানি না করতে পুত্রবধূকে শাসিয়ে দেয়। ওই ঘটনায় রবিবার রাতে ধর্ষিতা পুত্রবধূ বাদী হয়ে নকলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান জানান, ধর্ষণের অভিযোগে পুত্রবধূর দায়ের করা মামলায় তার শ্বশুর হাসুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভিকটিম পুত্রবধূকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে ও গ্রেফতারকৃত শ্বশুর হাসুকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে