মরি‍চ ক্ষেতে পরে‌‍ আছে যুবকের লাশ।

0
2

মো: বায়েজীদ হুসাইন, পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধি:পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটা পৌরসভার কচ্ছপখালী এলাকার একটি মরিচ ক্ষেত থেকে মিরাজ নামের (২২) এক মোটরসাইকেল চালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মরি‍চ ক্ষেতে পরে‌‍ আছে যুবকের লাশ।
মরি‍চ ক্ষেতে পরে‌‍ আছে যুবকের লাশ।

মিরাজ কচ্ছপখালী এলাকার সিদ্দিক ভদ্রে‌‍র ছেলে।এলাকাবসী জানান, গত সাত মাস পূর্বে মিরাজ একটি বিবাহ করেছিল। ওই স্ত্রীর সাথে তার মামাতো ভাইয়ের সম্পর্ক থাকায় বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

এরপর তিন মাস পূর্বে মিরা‍জ দ্বিতীয় আরে‌‍কটি বিবাহ করে। কিন্তু মিরাজ প্রথম স্ত্রীর মায়া না কাটাতে পেরে‌‍ পুঃণরা‍য় তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে, প্রথম স্ত্রীর মামাতো ভাই রাকিবের সহযোগীদের সাথে তার কঠিন বাকবিতণ্ডা হয়।

মিরা‍জের বাবা সিদ্দিক ভদ্র জিনান, মিরাজ গতকাল রাত দশটার দিকে বাবার সাথে খাবার খেয়ে বাহিরে নামেলে আর বাসায় ফেরত আসেনি। বারবার তার মোবাইলে কল করেছে কিন্তু মোবাইল বন্ধ ছিলো। পরদিন সকালবেলা ওই এলাকার তামিম নামের একটি শিশু মরিচ ক্ষেতে একটি লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের জানান।

স্থানীয়রা লাশ দেখে শনাক্ত করতে পেরে‌‍ মহিপুর থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছেন।এব্যাপারে‌‍ মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মো.মনিরুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না।

তবে লাশের সাথে একটি মোবাইল ফোন পাওয়া গেছে। মোবাইল ফোনে মাধ্যমে হত্যাকারীদের শনাক্ত করা যেতে পারে। কিন্তু মিরা‍জের বাবা দাবি করে‌‍ন যে, তার ছেলেকে প্রথম স্ত্রীর প্রেমিক রাকিবের সহযোগীরা তাকে হত্যা করেছে।