শ্রীপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে মারধর : বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

0
4

শ্রীপুর, (গাজিপুর) প্রতিনিধিঃ
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গোসিঙ্গা ইউনিয়নের পেলাইদ গ্রামের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.ছিদ্দিকুর রহমান শেখকে লাঞ্চিত করে একাধিকবার মারধরের ঘটনায় বুধবার বিকেলে গোসিঙ্গা বাজারে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী।

বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিদ্দিকুর রহমান জানান, তার দৌহিত্র’র (নাতিন)মোটরসাইকেলের উপরে ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরে একটি ড্রামটাক উঠিয়ে দিতে চাইলে কৌশলে সাইড নিয়ে প্রানে রক্ষা পায়। এনিয়ে ড্রামট্রাকের মালিক রাতুলের সাথে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও দৌহিত্র’র কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর কিছু সময় পর বীরমুক্তিযোদ্ধা ও তার সন্তান আশরাফুল আমরাইদ বাজারে গরু কেনার জন্য রওয়ানা হয়ে গোসিঙ্গা নদীর ঘাটে নদী পার হবার জন্য নৌকার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে।

এসময় ড্রামট্রাকের মালিক খোজেখানি এলাকার রাতুল, মাসুদ, রানা আকন্দ, ইলিয়াস, আনিস, আমিনুল সহ আরও কয়েকজন খেয়া ঘাটে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আশরাফুলের উপর আক্রমণ চালিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে।

বীরমুক্তিযোদ্ধা তার সন্তানকে মারধরের কারন জিজ্ঞেস করে ফেরাতে গেলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে, “তুই কিসের মুক্তিযোদ্ধা, তোর মত মুক্তিযোদ্ধাকে মেরে ফেললে কি হবে?” বলে তার কলার চেপে ধরে লাঞ্চিত ও মারধর শুরু করেন, একপর্যায়ে মারধর করতে করতে টেনেহিঁচড়ে খেয়া ঘাট থেকে বাজারের দিকে নিয়ে যেতে থাকে। এ দৃশ্য দেখে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদেরকে রক্ষা করেন। এসময় মুক্তিযোদ্ধার সাথে থাকা গরু কেনার ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা নিয়ে যায় অভিযুক্তরা।

পরে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আশরাফুল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে বাড়ি ফেরার সময় অভিযুক্তরা ক্ষিপ্ত হয়ে আরও লোকজন নিয়ে সন্ধায় গোসিঙ্গা বাজারে মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের লোকজন বহনকারী অটোরিকশা আটকে রিকসা থেকে টেনেহিঁচড়ে নামিয়ে দেশিয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে, এতে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ তার পরিবারের বেশ কয়েকজন আহত হয়।আহতদের মধ্যে হানিফা, সামাদ শেখ, লাভিব ও কবিরকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন।

মানববন্ধনে ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও বীর মুক্তিযোদ্ধারা সহ বক্তারা এমন জঘন্য ঘৃণিত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অনতিবিলম্বে দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবি জানান।

মানববন্ধনে বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিদ্দিকুর রহমান কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, স্বাধীনতার এত বছর পরে এসে এভাবে লাঞ্চিত হবো কল্পনাও করিনাই, এতটুকু পাবার জন্য, দেখার জন্য কি জীবনের মায়া ত্যাগ করে যুদ্ধ করেছিলাম? এর আগে কেন মরণ হলোনা। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দোষীদের বিচার দাবি করছি।

এবিষয়ে শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে ব্যাবস্থা নেয়া হচ্ছে।