শীত নামছে ধীরে ধীরে

0
197

সময়েরপাতাঃ অবশেষে তাপ কমছে ধীরে ধীরে। দিনে বেশ গরম থাকলেও রাতের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে শুরু করেছে। গতকাল বুধবার রাতের তাপমাত্রা হ্রাস পেয়েছে ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশের সর্বত্র ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকছে। নদী তীরবর্তি এলাকায় ঘন কুয়াশায় দৃশ্যমান বিন্দু চলে আসছে নিকটে।শীত
ডিসেম্বরের শেষ দিক থেকে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল কনকনে ঠাণ্ডার আওতায় থাকলেও চলতি শীত মওসুমটি বেশ ব্যতিক্রম। তেমন ঠাণ্ডা এখনো পড়েনি। এখনো মানুষ দিনের বেলা হালকা কাপড় গায়ে দিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। বদ্ধ বাসা অথবা অফিসে এখনো মাথার উপরে পাখা ঘুরছে। রাজধানীর অনেক অফিসে নিয়মিত এসি চালানো হয়। অবশ্য গ্রামের দিকে রাতে বেশ শীত পড়ে গাছ-গাছালি বেশি থাকার কারণে।
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালটিকে ওয়ার্ল্ড ম্যাটিওরোলজিক্যাল অর্গানাইজেশন (ডব্লিউএমও) স্মরণকালের মধ্যে উষ্ণতম বছর হিসেবে ঘোষণা করেছে। পরিবেশ গরম রাখার নানা কারণ বিরাজমান থাকায় বিশ্বের সর্বত্র বিরাজ করছে উষ্ণ আবহাওয়া। বৈশ্বিক আবহাওয়ার বিরূপ প্রভাবে বাংলাদেশের আবহাওয়াও বেশ প্রভাবিত বলে জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা। ফলে ডিসেম্বর পেরিয়ে জানুয়ারি এলেও শীতের দেখা মিলছে না।
আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, গত ডিসেম্বরে সাগরে ঘন ঘন লঘুচাপ, নি¤œচাপ ও ঝড় থাকায় দক্ষিণ-পশ্চিম মওসুমি বায়ুর প্রভাব কাটেনি। সাগর থেকে উষ্ণ বায়ু বাংলাদেশসহ ভারতীয় কিছু অঞ্চলে বিরাজমান থাকায় উত্তর ও পশ্চিম দিক থেকে শীতল বায়ু এ অঞ্চলে প্রবেশ করতে পারছে না। ভারতের কিছু কিছু অঞ্চলে শীত পড়লেও বাংলাদেশের সাথে লাগোয়া অঞ্চলগুলোতে বাংলাদেশের মতোই আবহাওয়া বিরাজ করছে।
আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের একটি বর্ধিতাংশ ভারতের বিহার পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এটা একটি ঠাণ্ডা বায়ু সংবলিত উচ্চচাপযুক্ত বলয়। আবহাওয়ার এ বিশেষ অবস্থাটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ পর্যন্ত বিস্তৃত থাকলে বাংলাদেশ অঞ্চলে কনকনে ঠাণ্ডা পড়ে। কোথাও কোথাও শৈত্যপ্রবাহ বইতে শুরু করে।
গতকাল সন্ধ্যা থেকে আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পাবে। কিন্তু আজ বৃহস্পতিবার দিনের তাপমাত্রা যথারীতি অপরিবর্তিত থাকবে। ফলে রাতের ও সকাল পর্যন্ত শীতের অনুভূতি পাওয়া গেলেও দিনের বেলা বেশ গরমই অনুভূত হবে।
আবহাওয়ার পাঁচ দিনের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী পাঁচ দিন বর্তমানের মতোই থাকবে আবহাওয়া। পরিবর্তন হলে সামান্যই পরিবর্তন হবে।
গতকাল দেশের সর্বনিম্নে তাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায় ১০.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজার ও টেকনাফে ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানী ঢাকার সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্নে তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে ২৬.৬ ও ১৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।