হাবিপ্রবির জন্য সবচেয়ে বড় খুশির দিন আজ

0
162

hstu proggapon৮ই এপ্রিল ২০০২ ।  এক অনন্য দিন ।  হাবিপ্রবি র প্রজ্ঞাপন জারী ।  শুরু হয় পথ চলা…..
১৯৯৯ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর উত্তর জনপথের জেলা শহর দিনাজপুরের বাঁশেরহাট নামক স্থানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন । প্রকল্প পরিচালক হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ আনিসুর রহমান স্যার কে ।

এরপর প্রজ্ঞাপন জারির আগেই  ২০০০ সালে প্রথম ব্যাচ এবং ২০০১ সালে দ্বিতীয় ব্যাচ ভর্তি করা হয় ।

শুরু হয় সংকট । পরীক্ষা না নেয়া, ভিসি নিয়োগ, প্রজ্ঞাপন জারি, আইন পাশ, পরীক্ষা পদ্ধতি ইত্যাদি বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোন সদুত্তর দিতে না পারায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম এবং দ্বিতীয় ব্যাচ এর অধীনে শুরু হয় বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন আন্দোলন । প্রথম ও  দ্বিতীয় ব্যাচের অধীনে ভর্তিকৃত ২৫০ জন ছাত্র-ছাত্রীর জীবন তখন ঘোর অন্ধকারে আর অনিশ্চয়তায় ।

২০০১ সালের ১লা জুলাই মহান জাতীয় সংসদে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাশ হয় ।কিন্তু এরপর  দেশে সরকারের  পরিবর্তন হয় । নতুন সরকার আসার পর হাবিপ্রবি নিয়ে টালবাহানা শুরু হয় । একবার প্রথম ও দ্বিতীয় ব্যাচ কে জানানো হয় এই বিশ্ববিদ্যালয় এর কার্যক্রম চালানো সম্বব না ,  কিন্তু আন্দোলনকারী ছাত্র-ছাত্রীদের পরিষ্কার কথা আমাদের ভর্তি করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যানারে কাজেই সেভাবেই সব হতে হবে । আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর হয় । মিটিং , মিছিল , মানববন্ধন , অবরোধ একে একে সবই হয় । একদিন হল থেকে রাতের আঁধারে দুই ব্যাচ এর ছাত্রদের বের করে দেয় । এগুলো নির্যাতন এর প্রতিচিত্র । আরেকবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগা ১ম ২য় ব্যাচের ছাত্ররা দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় স্বেচ্ছাকারাবরণ এর জন্য যায় । এভাবেই চলে রাজপথের আন্দোলন ।একপর্যায়ে আন্দোলন নিয়ে যেতে হয় ঢাকা পযন্ত ।  দীর্ঘ ২৯ মাসের আন্দোলনের ফসল অবশেষে ঘরে আসে। কিছুদিন আগে দ্বিতীয় ব্যাচের রিইউনিয়নে আন্দোলনের বিস্তারিত ইতিহাস ও গুরুপ্ত  তুলে ধরেন আমাদের সম্মানিত শিক্ষকরা ।

অবশেষে  ৮ই এপ্রিল ২০০২ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করে । হতাশার চাদর ভেঙ্গে অবশেষে সূর্যোদয় । ২৯ মাসের কষ্ট ভুলে যাই আমরা ।  আনন্দের রং তখন ক্যাম্পাসের সকলের মাঝে । ছাত্র-শিক্ষক- কর্মকর্তা-করমচারী-শ্রমিক-জনতা মিলেমিশে একাকার । দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান শেষে অবশেষে উত্তর জনপথে পুরনাঙ্গ রুপ পেল হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ।অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় যেভাবে তৈরি হয় আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রজ্ঞাপন জারির ইতিহাস ততোটা সহজ ছিলনা ।  আর এসব ইতিহাস হয়তো লিখে শেষ করা যাবেনা।এসব আমাদেরকে আন্দোলনের মাধ্যমে অর্জন করে নিতে হয়েছিল।  নতুন প্রজন্মের এসব জানা উচিত ।যে ডি বক্সে এখন তোমরা আড্ডা দাও , এই ডি বক্সেই আমাদেরকে মাটিতে ফেলে পিটিয়েছে পুলিশ , অনেকের রক্ত ঝরেছে এই ডি বক্সেই । তৎকালীন সরকার ছিল একটা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপক্ষে , তাই সহজেই অনুমান করা যায় এই কাজটা কতোটা কঠিন ছিল আমাদের জন্য ।   যে বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য এতোটা ত্যাগ শিকার করতে হয়েছিল প্রথম ও দ্বিতীয় ব্যাচকে সে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভালো সব সময়ই চাই আমরা , আমাদের এই  ভালোবাসা মুখে মুখে বা কৃত্তিম না , এই ভালোবাসা প্রাকৃতিক । হাবিপ্রবি মিশে আছে আমাদের অন্তরের সাথে ।