হাবিপ্রবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

0
588

মুহিউদ্দিন নুর, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্বীর্যের মধ্যে দিয়ে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’২০১৭ পালিত হয়েছে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসনিক ভবনের সম্মুখে জাতীয় পতাকা অর্ধ-নমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। হাবিপ্রবিতে যথাযোগ্য মর্যাদা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

সকাল সাড়ে ৮টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেম-এর নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীরা কালো ব্যাচ ধারণ করে প্রভাত ফেরিতে অংশ নেয়। প্রভাত ফেরি শেষে উপাচার্য শহীদদের বিদেহী আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। ক্রমান্বয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন শিক্ষক সমিতি, প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম, সাদা দল, হল/ডরমিটরিসমূহ, প্রগতিশীল কর্মকর্তা পরিষদ, অফিসার্স ফোরাম, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (হাবিপ্রবি শাখা), বিদেশী শিক্ষার্থীগণ, প্রগতিশীল কর্মচারী পরিষদসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। এরপর মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে তিনি দুটি দেয়ালিকা উদ্বোধন করেন।উপাচার্য মহোদয়ের ২১’র বাণী পাঠ ও বিতরণ শেষে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্যের উপর শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. এস.এম. হারুন-উর-রশীদ-এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এবং ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন অধ্যাপক মো. রুহুল আমিন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পোস্টগ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডীন অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান, কৃষি অনুষদের সাবেক ডীন অধ্যাপক ড. মো. আনিস খান, বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. বলরাম রায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. সাইফুর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ. টি. এম. শফিকুল ইসলাম, ফিসারিজ অনুষদের ডীন ড. মোহাম্মদ ফেরদৌস মেহবুব, ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক, প্রগতিশীল কর্মকর্তা পরিষদের পক্ষে সাধারন সম্পাদক আ.ন.ম ইমতিয়াজ হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ হাবিপ্রবি শাখার পক্ষ থেকে মমিনুল হক রাব্বি , রবিউল ইসলাম রবি ও মমিনুল ইসলাম মোনেম, প্রগতিশীল কর্মচারী পরিষদের পক্ষে সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর আলম ও সাধারন সম্পদক মো. পারভেজ হোসেন প্রমূখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন দুরুদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, একুশে ফেব্র“য়ারি একদিকে যেমন শোক ও বেদনার, অন্যদিকে তেমনি শক্তি ও প্রেরণার। ভাষা শহীদদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি মায়ের ভাষা ‘বাংলা’ ও স্বতন্ত্র সংস্কৃতি। আজকের এই দিনে আমি মহান ভাষা শহীদদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করছি। নতুন প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর ভবিষ্যৎ রেখে যেতে হলে বাংলা ভাষার শুদ্ধ চর্চা ও সুস্থ অনুশীলনের মাধ্যমে নিজস্ব সংস্কৃতি ও মূল্যবোধের বিকাশ ঘটাতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই, তিনি বিশ্বের সব ভাষার মর্যাদা রক্ষার জন্য ঢাকায় আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছেন। একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ ও জাতি গঠনে সকলকে নিজ নিজ দায়িত্ব আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করার আহবান জানান তিনি।

আলোচনা সভা শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম। এছাড়া বাদ জোহর ভাষা শহীদদের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় মসজিদে মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়।