পত্নীতলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিনামূল্যের বই বিতরণে অর্থ আদায়ের অভিযোগ

0
25

Patnitala picইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর পত্নীতলায় এক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিনামূল্যের সরকারি বই বিতরণের নামে অর্থ আদায়ের অভিযোগ তুলেছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

সরেজমিন গিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ৮৭ নং নেপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিনা মূল্যের বই বিতরণের নামে ১০ টাকা করে অর্থ আদায় করেছেন। এতে বাধ্য হয়ে অনেক শিক্ষার্থী নতুন বই নিয়েছেন।
৫ম শ্রেণির ছাত্র আহাদ আলীর মা রেহেনা খাতুন জানান, বিনামূল্যের সরকারি বই আমার সন্তান প্রথমে বিদ্যালয়ে নিতে গেলে বাড়িতে ২য় শ্রেণির শিক্ষার্থী জান্নাতুন নাইমা বলেন, আমাদের হেড ম্যডাম মানছুরা ১০টাকা নিয়ে নতুন বই দিয়েছেন।
খালি হাতে ফিরেন ও ১০টাকা দিয়ে পরে নতুন বই পান।
মোরশেদা বেগম জানান, আমার মেয়ে ৫ম শ্রেণির ছাত্রী মিম্মাতুনের কাছ থেকে টাকা নিয়ে নতুন বই দেন। ১০টাকা ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শিউলি খাতুন নেয়। টাকা নেয়ার বিষয়ে শিক্ষকরা বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংখ্যা বেশি ও বেতন পান না। আপনারা এগুলো বুঝবেন না, তিন জন শিক্ষকের এখনো বেতন হয়নি।
অভিভাবক হাফছা খাতুন জানান, আমার সন্তানের নতুন বই নিতে ১০ টাকা প্রধান শিক্ষিকা নিজ হাতে নেয়। এসময় সহকারী আরো ৪ শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। কোন রশিদ ছাড়া টাকা নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষকরা জানান, মিষ্টি খাওয়ার জন্য মাত্র ১০টাকা করে সবার কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে।
শিক্ষার্থীরা জানায়, নতুন বছরে, নতুন বই নিতে ১০টাকা করে হেড মেডামের নির্দেশে স্যারেরা মিষ্টি খাওয়ার জন্য নিয়েছেন। যারা আজ টাকা দিয়েছেন, তারাই শুধু বই পেয়েছেন।
ওই বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক মাসুদ রানা জানান, আমার তৃতীয় শ্রেণির সন্তানের বই পাননি, অবশেষে খালি হাতে বাড়ি ফিরেন। শিক্ষকরা জানিয়েছেন, আজ বই নেই, কাল পাবে।
৮৭ নং নেপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছা: মানছুরা জানান, অভিযোগটি আসলে তেমন কিছু নয়। কারো কাছে নতুন বই বিতণের নামে টাকা নেয়া হয়নি। আর কিছু জানতে চান কি আপনে ? বলেই মোবাইল ফোন কলটি কেটে দেন।
পত্নীতলা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: রবিউল ইসলাম এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোবাইল ফোনে জানান, আমার সহকারী শিক্ষা অফিসার দিয়ে তদন্ত পূর্বক প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে ও সত্যতা মিললে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।