গরু ব্যবসায়িকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ

0
46

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রাজীবপুর সীমান্ত এলাকা থেকে জুরান আলী (৩৪) নামের এক বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়িকে ধরে নিয়ে গেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। ধরে নিয়েই বিএসএফ সদস্যরা তার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালায় এবং আধামরা করে ভারতীয় পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পরে ভারতের পুলিশ আশংকাজনক অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে বলে জানা গেছে।
রবিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা রাতে বালিয়ামারী বর্ডার হাট এলাকা থেকে ওই গরু ব্যবসায়িকে ধরে নিয়ে যায় কালাইরচর বিএসএফ ক্যাম্পের সদস্যরা। জুরান আলীর বাড়ি বালিয়ামারী চরপাড়া গ্রামে বলে জানা গেছে।
সীমান্তবাসি ও বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, ওই দিন সন্ধ্যা রাতে বালিয়ামারী বর্ডার হাট সংলগ্ন সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে গরু নামাতে যায় ১০/১২ জনের একটি দল। এসময় ভারতের কালাইরচর বিএসএফ ক্যাম্পের টহল দলের সদস্যরা গরু ব্যবসায়িদের ধাওয়া করে এবং জুরান আলী নামের ব্যবসায়িকে ধরে ফেলে।
পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, বিএসএফ তাকে ধরে নিয়ে মারপিট শুরু করে। অমানুষিক নির্যাতনের পর আধামরা অবস্থায় ভারতের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। পুলিশ আশংকাজনক অবস্থায় ভারতের তুড়া জেলার একটি হাসপাতালে ভর্তি করেছে। কিন্তু সে মারা গেছে না, বেঁচে আছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এ প্রসঙ্গে বালিয়ামারী বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার হাবিব মিয়া জানান, আমরা জানতে পেরেছি সীমান্তে গরু নামাতে গিয়ে জুরান আলী নামের এক ব্যবসায়ি বিএসএফ’র হাতে আটক হয়েছে। পরে অপহৃত গরু ব্যবসায়িকে ফেরত চেয়ে পতাকা বৈঠকের আহবান জানানো হয়েছে বিএসএফ’র কাছে। আজ সোমবার বিকাল পর্যন্ত বিএসএফ কোনো উত্তর দেয়নি।