নতুন ইসি বিএনপির মেনে নেওয়া উচিত: জাফরুল্লাহ

0
29

সৌরভ ঘোষ: গণস্বাস্থ্য বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, নতুন নির্বাচন কমিশন নিয়ে অখুশির কিছু নেই। বরং এই কমিশন বিএনপির মেনে নেওয়া উচিত।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর ফটো জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনে কাগমারী সম্মেলন দিবস উদযাপন প্রস্তুতি কমিটি আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

‘ঐতিহাসিক কাগমারী সম্মেলনের ষাট বছর পূর্তিতে মজলুম জননেতা মাওলানা ভাসানীর গুরুত্বপূর্ণ চিঠি ও ফটো প্রর্দশনী’ শীর্ষক এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, নির্বাচন কমিশন আরো খারাপ হতো যদি মোল্লা ওয়াহিদুজ্জামানকে সিইসি বানাতো। সেক্ষেত্রে নুরুল হুদা অনেক ভালো। আর এ জন্য প্রধানমন্ত্রীকে কর্তৃত্ব দেওয়া উচিত। সুতরাং ইসি নিয়ে অখুশি হওয়ার কিছু নেই। তিনি ‘নুরুল হুদা’ জনতার মঞ্চের নেতা ছিলেন সেটা দোষের কিছু নয়।

তিনি বলেন, নতুন সিইসিকে আমরা বিশ্বাস করতে পারি। তার উপর আস্থা রাখতে পারি উনি কোন দলের হবেন না। তবে নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হবে কী না তা বিএনপির উপর নির্ভর করছে।

বিএনপি অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়েছে মন্তব্য করে জাফরুল্লাহ বলেন, বিএনপি নিজেদের কারণেই নিজেদের ঘরে বন্দি হয়ে আছে। তারা ঘর থেকে কবে বের হবেন। প্রশ্ন রাখেন তিনি।

তিনি বলেন, বিএনপি ও বিরোধী দলগুলোর ভবিষ্যৎ কী হবে সেটা তাদের উপর নির্ভর করছে। তবে আমি বিএনপিকে বলতে চাই, বিএনপির নেত্রীকে ছোট বড় সকল রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হবে। এবং সকলকে এক সাথে নিয়ে কাগমারীতে ভাসানীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে রাজপথে নামতে হবে।

এর আগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, জনগণ সরকার পরিবর্তনের জন্য রাজপথে আন্দোলন দেখতে চায়। কিন্তু আমরা সেটা করতে পারছি না।

জাফরুল্লাহ’র সভাপতিত্বে সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মোস্তফাজামাল হায়দার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।
আমাদের সময়.কম