হাবিপ্রবিতে বন্যার্তদের সাহায্য করার জন্য তৈরি হচ্ছে ধানের চারার বেড

0
588

মুহিউদ্দিন নুর,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃহাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী বন্যাদূর্গত অঞ্চলে পানি নেমে গেলে ধানের চারা প্রদানের প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।এ উপলক্ষ্যে আজ সকাল ১১ টায়


vc sir35

বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা মাঠে প্রায় ১ একর জমিতে বি আর ৩৪ জাতের ধানের চারা রোপন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার এগ্রোনোমিস্ট প্রফেসর ড. সফিউল আলম এবং অধ্যাপক মো: মিজানুর রহমান,অধ্যাপক ড.মো: শাহাদাৎ হোসেন খান, ড. শ্রীপতি শিকদার সহ অন্যান্য শিক্ষিকবৃন্দ । এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন আমি যেদিন প্রথম বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শনে যাই সেদিন দেখলাম সবচেয়ে ক্ষতি হয়েছে ফসলের মাঠের। আর পানি নেমে যাওয়ার পর কৃষকরা চাইলেও বীজ বা চারা পাবেন না । এতে এই এলাকা তথা দেশের জন্য বিশাল খাদ্য ঘাটতি হয়ে যাবে , তাই আমি তৎক্ষণাৎ চারা রোপনের এবং তাদের মাঝে বিনামূল্য এই চারা বিতরনের সিদ্ধান্ত নেই।এতে হয়তো তাদের একটু হলেও উপকার হবে।  এ উদ্দেশ্য আমরা ১ একর(৩ বিঘা) জমিতে বীজ বপন করেছি এবং এই চারা দিয়ে   আমরা এই অঞ্চলের প্রায়  ২০ একর  ( ৬০ বিঘা) জমিতে  চারা রোপন করা যাবে।

vc sir36

এই জাতের বৈশিষ্ট্য হলো এটি লেট ভ্যারাইটি  অর্থাৎ  দেরিতে রোপন করেও চলমান  সিজনের মতো ধান উৎপাদন সম্ভব।আশা করি ২০-২৫ দিনের মধ্যে এই চারা  আমরা স্থানীয় চাষীদের হাতে চারা তুলে দিতে পারবো। এরপর তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য নিয়ে আসা নতুন একটি পাওয়ার টিলারের উদ্বোধন করেন এবং শেষে নির্মানাধীন প্রশাসনিক ভবনের কাজ পরিদর্শন করেন ও বর্ধিত সময়েও কাজ শেষ করতে না পারলে জরিমানার কথা বলেন । তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের ল্যাব ও ক্লাসের সংকট তাই যতো দ্রুত সম্ভব এই কাজ শেষ করা উচিৎ ।