বর্নিল আয়োজনের মধ্য দিয়ে হাবিপ্রবির ১৮ তম জন্মদিন উদযাপিত

0
89

মুহিউদ্দিন নুর , দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ আজ  হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮ তম জন্মদিন তথা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস।  রংপুর বিভাগের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এটি। তেভাগা আন্দোলন এর জনক ও এ অঞ্চলের জনদরদী কৃষকনেতা হাজী মোহাম্মদ দানেশ এর নামানুসারে এর নামকরণ করা হয়। এটি উত্তর বাংলার সেরা বিদ্যাপীঠ যা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে । মাত্র একটি  অনুষদ ও সামান্য সুযোগ সুবিধা নিয়ে যাত্রা করা এ বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন ৯ টি  অনুষদ ও ২০ টি  ডিগ্রী দেয়া হচ্ছে । বর্তমানে বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বিদেশী শিক্ষার্থী এখানে পড়াশুনা করে  । দিনটি উপলক্ষে আজ  উৎসবমূখর পরিবেশে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সন্মুখে


vc sir42

বেলুন ও শান্তিরদূত পায়রা উড়িয়ে কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম। এ উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন। র‌্যালি শেষে প্রশাসনিক ভবনের সন্মুখে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন ও সাবেক ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মো. রুহুল আমিন, পোস্টগ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডীন প্রফেসর মো. মিজানুর রহমান, ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স অনুষদের ডীন প্রফেসর ডা. মো. ফজলুল হক, সোসাল সায়েন্স অ্যান্ড হিউমিনিটিস অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. ফাহিমা খানম, রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. বলরাম রায়, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ডা. এস এম হারুন-উর-রশীদ, হিসাব শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. মো. শাহাদৎ হোসেন খান প্রমূখ।
আলোচনা সভা শেষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ হাবিপ্রবি শাখার উদ্যোগে ১৮তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে কেক কাটা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন আলাদা আলাদা ভাবে কেক কেটে , আল্পনা একে ও অন্যান্য আয়োজনের মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করে ।


vc sir43

আলোচনা সভায় ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠার মূল লক্ষ্যকে সমুন্নত রেখে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রমের মাধ্যমে দেশের উচ্চশিক্ষা বিস্তারে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০ হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন দেশের দুই শতাধিক বিদেশী শিক্ষার্থী উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করছে। এ সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখে বিশ্ববিদ্যালয়টিকে সেন্টার অব এক্সিলেন্স হিসেবে গড়ে তুলতে এবং দেশের উচ্চশিক্ষা বিস্তারে আরও ভূমিকা রাখতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। উপাচার্য আরো বলেন বর্তমান সরকার ভরসা রেখে আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন , আমি সুচারুভাবে সেই দায়িত্ব পালন করে যাবো । বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামোগত উন্নয়ন কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে , আরও বেশ কিছু উন্নয়ন কাজ হাতে নেয়া আছে । পাশাপাশি শিক্ষার মান উন্নয়ন করতে ও দক্ষ গ্র্যাজুয়েট তৈরিতে আমি বদ্ধ পরিকর । তিনি যোগ করেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ইতোমধ্যে তাদের মেধার স্বাক্ষর রেখেছে ,ভবিষ্যতে তারা তাদের কর্মের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়কে আরও উচ্চতর আসনে নিয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি । পরিশেষে মাননীয় উপাচার্য বলেন আপনারা সবাই জানেন  বন্যাকবলিত হয়ে বর্তমানে বাংলাদেশের অসংখ্য মানুষ কষ্টের মধ্যে আছেন , তাদের কথা চিন্তা করে আমরা এবার খুব বড় পরিসরে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালন করিনি , সামনে বড় আকারে পালন করার ইচ্ছা আছে ।