জবিতে শিক্ষক নিয়োগে ‘অধিকতর যোগ্য’ প্রার্থীকে বাদ দেয়ার অভিযোগ

0
21

সময়ের পাতাঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) নৃবিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষক নিয়োগে ‘অধিকতর যোগ্য’ প্রার্থীকে বাদ দেয়ার অভিযোগ তুলেছেন বিভাগটির শিক্ষকরা। ফলে আটকে গেছে নিয়োগ প্রক্রিয়া। জবি

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী আবদুল কুদ্দুসকে নিজ বিভাগের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত হওয়ার কথা ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১তম সিন্ডিকেট সভায়। ওইদিন সকালেই এ নিয়োগের বিষয়ে আপত্তি জানিয়ে ভিসিকে লিখিত অভিযোগ দেন বিভাগটির ৮ জন শিক্ষক।

ফলে আটকে যায় পুরো প্রক্রিয়াটি। অভিযোগকারী শিক্ষকরা জানান, বিভাগীয় চেয়ারম্যান ড. সানজিদা ফারহানা ‘অধিকতর যোগ্য’ প্রার্থীকে বাদ দিয়ে ‘বিতর্কিত’ একজনকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার চেষ্টা করছেন। তিনি বিভাগেরই শিক্ষার্থী ছিলেন। শিক্ষক নিয়োগে বিভাগীয় চেয়ারম্যানের সুপারিশ করা শিক্ষার্থী আবদুল কুদ্দুস অনার্সের প্রথম শ্রেণিতে তৃতীয় ও মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণিতে দ্বিতীয় হয়েছেন। অন্যদিকে দ্বিতীয় ব্যাচের আমিনুর রহমান অনার্স ও মাস্টার্সে দুটিতেই প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হয়েছেন। তিনিও নিয়োগের জন্য আবেদন করেছিলেন। তবে নিয়োগ বোর্ডের সুপারিশে তার নাম আসেনি। এদিকে অভিযোগের প্রেক্ষিতে ভিসি সিন্ডিকেটে নিয়োগের বিষয়টি তোলেননি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক মো. সেলিম ভূঁইয়াকে তদন্তের দায়িত্ব দেন তিনি। নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক শাওলী মাহবুব জানান, আমরা ভিসির কাছে অভিযোগ দিয়েছি। বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিষয় হওয়ায় প্রশাসনিকভাবেই এর সমাধানের আশা করছি।

এ জন্যই ভিসি কাছে গেছেন তারা। অভিযোগ অস্বীকার করে বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সানজিদা ফারহানা বলেন, নিয়ম মেনেই নিয়োগ বোর্ড আবদুল কুদ্দুসের নিয়োগে সুপারিশ করেছিল। এর বেশি কিছু বলতে চাননি তিনি। এ বিষয়ে ভিসি ড. মীজানুর রহমান বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত চলছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর বিষয়টি সিন্ডিকেটে উঠবে।