গ্রেপ্তারি পরোয়ানা তারেকের বিরুদ্ধে

0
85

তারেতজিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জামিন বাতিল করে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আবু আহমেদ জমাদার এই আদেশ দেন বলে প্রথম আলোকে জানিয়েছেন তারেকের আইনজীবী জয়নাল আবেদিন মেজবাহ।

মেজবাহ বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় তারেক রহমান হাইকোর্ট থেকে জামিনে ছিলেন। আজ এ মামলার আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানির দিন ধার্য ছিল। শুনানির দিনে তিনি হাজির না থাকায় আদালত তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দিয়েছেন। এই মামলায় আজ দুজন আসামি আত্মপক্ষ সমর্থন করেছেন। ওই দুজন হলেন সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ।

আদালত সূত্র বলছে, একই মামলায় খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য ৩০ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। সেদিন তিনি আদালতে হাজির না হলে তাঁর জামিন বাতিল করা হবে বলে আদালত আসামিপক্ষের আইনজীবীদের বলে দিয়েছেন। আর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার অসমাপ্ত বক্তব্য উপস্থাপনের শুনানির জন্য আগামী ২ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করা হয়েছে। এর আগে খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে সময় চেয়ে আবেদন করা হয়। একটি সংগঠনের হরতাল কর্মসূচি থাকায় নিরাপত্তার কারণে তিনি আদালতে হাজির হতে পারেননি বলে খালেদার পক্ষে সময় আবেদন করা হয়। আদালত ওই আবেদন মঞ্জুর করে শুনানির নতুন এই তারিখ ধার্য করেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রাজধানীর রমনা থানায় মামলা করে দুদক। এই মামলায় খালেদা জিয়া, তাঁর বড় ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। মামলার অপর চার আসামি হলেন সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমান।