যুক্তরাষ্ট্রে হিজাবি নারী লাঞ্ছিত

0
49

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুসলিম নিষেধাজ্ঞার তোলপাড়ের মধ্যে দেশটিতে হিজাবধারী এক নারীকে হয়রানি ও লাঞ্ছিত করা হয়েছে।asma-elhuni
আটলান্টার কফি শপে শেতাঙ্গ এক আমেরিকান আসমা ইলহুনি নামের মুসলিম নারীকে লাঞ্ছিত করেন।

আসমা আমেরিকান নাগরিক। তিনি জর্জিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির রাষ্ট্রবিজ্ঞানের স্নাতকের ছাত্রী এবং যুক্তরাষ্ট্রে মেক্সিকোর ডেমোক্রেট দলের প্রতিনিধি ব্রেনডা লোপেজের শিক্ষানবিশ।

ক্যাফেতে ওই ব্যক্তি ছবি তুলতে গেলে আসমা তার প্রতিবাদ করেন। এ সময় শেতাঙ্গ ওই ব্যক্তি অকথ্য ভাষায় গালি দিয়ে চিৎকার করে ওঠেন, ‘তোমার গ্রিন কার্ড আছে?’

এ ঘটনায় ৩৯ বছর বয়সী আসমা ইলহুনি রব কোহেলার নামে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।

আসমা বলেন, জো’স কফি শপে গিয়ে নিজের ল্যাপটপে বসে কাজ করছিলাম। এ সময় ওই ব্যক্তি এসে কোনো কিছু না বলেই মোবাইলে আমার ছবি তোলা শুরু করেন।

তিনি জানান, মাথার মধ্যে ব্যবসায়িক বিষয় ঘোরাফেরা করায় প্রথমে আমি তা এড়িয়ে যায়। কিন্তু পরিস্থিতি ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

আসমা বলেন, ‘আমি লোকটিকে জিজ্ঞাসা করি, তুমি কি আমার ছবি তুলেছো? চলে যাওয়ার ভঙ্গিতে তোমাকে ভালো লেগেছে, তাই ১১টি ছবি তুলেছি বলেই হাসতে থাকেন তিনি। আমি তার কাছ থেকে আমাকে করা ভিডিও টেপ চাই। এরপরই তিনি চটে যান। আমাকে বলতে থাকেন, তুমি কি শেতাঙ্গ?’

‘এরপর লোকটি আমার পাশে জোর করে বসার চেষ্টা করে এবং এক পর্যায়ে চিৎকার করে বলে ওঠে, তোমার কি গ্রিন কার্ড আছে? এ সময় রব কোহেলার আমাকে কয়েকবার ধাক্কাও দেন’, বলেন আসমা ইলহুনি।

অবশ্য এ ঘটনা টের পেয়ে কফিশপের বেশ কয়েকজন কর্মী এসে পরিস্থিতি সামাল দেন। পরে চা খেয়ে সেখানে থেকে বিদায় হন আসমা।

পরে আসমা এ ঘটনার ভিডিও নিজের ফেসবুকে আপলোড করলে তা ভাইরাল হয়। ৯০ হাজারের উপরে তা ভিউ হয়েছে।

অবশ্য এ ঘটনায় কফিশপ কর্তৃপক্ষ দুঃখপ্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে। তারা বলেছে, গ্রাহকদের প্রতি আমাদের আরও যত্নবান হওয়া উচিত ছিল।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর থেকে দেশটিতে মুসলিমরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন।